জন্ম নিবন্ধন

জন্ম নিবন্ধন পেজে আপনাকে স্বাগতম

আমাদের ওয়েব সাইটিটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি নিয়ে কাজ করার জন্য বানানো। অনলাইনে আবেদন করার সময় জন্ম নিবন্ধন নম্বর কিংবা এনআইডি কার্ড এর নম্বরের প্রয়োজন হয়। কিন্তু আপনার জন্ম নিবন্ধন/ এনআইডি কার্ড এর তথ্যের সাথে সার্টিফিকেটের তথ্যের মিল না থাকলে অনেক ধরনের সমস্যায় পরতে হয়। নিচে কোন সমস্যার জন্য করণীয় কী তা আলোচনা করা হলো:-

আমাদের এই পেজে আপনি জন্ম নিবন্ধন কার্ডের সমস্যার ইউনিক সমাধান পেতে পারেন।

নিচের আমাদের সার্ভিচ সমূহ দেওয়া হলো এবং কোন সমস্যার জন্য কী করতে হবে তা আলোচনা করা হলো:-

এটি মূলত যাদের এখনো জন্ম নিবন্ধন কার্ড হয়নি তারাই ব্যবহার করে। 

* জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করতে অবশ্যই যে বিষয়টি মাথায় রাখতে হবে।

যাদের জন্ম তারিখ ২০০০ সাল এর পরে তারা নিজের আবেদন নিজেরাই করতে পারবে না।

এবং যাদের জন্ম তারিখ ২০০০ সাল এর আগে তারা নিজের জন্ম নিবন্ধর নিজেরাই করতে পারবে।

সুতরাং: ২০০০ সালের পরে জন্ম তারিখ হলে অবশ্যই আগে পিতা মাতার জন্ম নিবন্ধন করতে হবে।

আবেদনের সম্পূর্ণ পদ্ধতি দেখতে ক্লিক করুন

জন্ম নিবন্ধনের আবেদন করতে ক্লিক করুন

অনলাইনে আবেদন শেষ হলে পেমেন্ট করতে হবে। প্রতিটি আবেদনের জন্য ফি ৫০.৫০ দিতে হবে। পেমেন্ট আপনারা মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে করতে পারবেন।

*** জন্ম নিবন্ধনের আবেদন নিয়ে কোন প্রশ্ন  থাকলে কমেন্ট করুন।

একটি জন্ম নিবন্ধর কার্ডে সাধারণত যে বিষয়গুলো পরিবর্তন করার প্রয়োজন হয়ে থাকে। (১) নিজের নাম বাংলা ও ইংরেজীতে (২) পিতা-মাতার নাম বাংলা ও ইংরেজীতে। (৩) জন্ম তারিখ। (৪) পিতা-মাতার কততম সন্তার (৫) লিঙ্গ। (৬) পাসপোর্ট নম্বর যুক্ত/ পরিবর্তন (৭) পিতা-মাতার এনআইডি ও জাতীয়তা। জন্ম স্থান/ বর্তমান ঠিকানা/ স্থায়ী ঠিকানা পরিবর্তন।  জন্ম নিবন্ধন কার্ডে সাধরণত এই সমস্যাই হয়ে থাকে।

এই সমস্যাগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি যে সমস্যাগুলো হয়ে থাকে (১) নাম ভূল (২) পিতা-মাতার নাম ভূল (৩) জন্ম তারিখ ভূল।

নাম ভূল হলে করণীয়:

১। জন্ম নিবন্ধনের ওয়েব সাইটে যেতে হবে । ক্লিক করুন

২। নিবন্ধন নম্বর ও জন্ম তারিখ দিয়ে অনুসন্ধান করতে হবে। ক্লিক করুন  অনুসন্ধানে ক্লিক করার পর নিচে কার্ডের তথ্য দেখাবে। এবং এখান থেকে নির্বাচন করতে হবে। ক্লিক করুন

৩। এখানে এসে কি পরিবর্তন করতে চান সেটা নির্বাচন করতে হবে। ক্লিক করুন । পরিবর্তন হয়ে কি হবে সেটা লিখতে হবে। ক্লিক করুন এভাবে সবগুলো সিলেক্ট করে সংশোধনীয় নাম দিয়ে ভূল লিপিবন্ধ করা  হয়েছিল এটি সিলেক্ট করতে হবে। ক্লিক করুন

৪। এখানে এসে ডকুমেন্ট আপলোড করতে হবে। নাম পরিবর্তনের জন্য আপনাকে আপনার স্কুল সার্টিফেকেট ও প্রত্যয়নপত্র আপলোড করতে হবে। আপলোডের জন্য সংযোজন কিরতে হবে। ক্লিক করুন। এবং কি আপলোড করলেন সেটা সিলেক্ট করতে হবে।  ক্লিক করুন সবশেষে আবেদন কারী সিলেক্ট করে, নিবন্ধনে যে নম্বর দেওয়া আছে সেটার শেষ ৪ ডিডিট দেখানে এবং মোবাইল নম্বরটি ভেরীফাই করে নিতে হব।। সব কিছু হয়ে ওটিপি দিয়ে সাবমিট করতে হবে। ক্লিক করুন। এটিই নাম ভূল হয়ে করণীয় আপনারা এভাবেই আপনার জন্ম নিবন্ধনের নাম পরিবর্তন করতে পারেন। ধন্যবাদ।

২। পিতা-মাতার নাম সংশোধন। এটিও নাম পরিবর্তনের সিস্টিমে করতে পারবেন। তবে, নিম্নলিখিত পদক্ষেপগুলি অনুসরণ করুন।

আপনার পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে হলে,

 

*** যদি আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর থাকে, তাহলে তাদের জন্ম নিবন্ধন নম্বর দিয়ে জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন করে তাদের নাম সংশোধন করে আসতে হবে। এরপর যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন করার সময় আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর দিয়ে থাকেন, তবে তাদের নাম সংশোধন করার পর আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ পুনর্মুদ্রণ করলে সেখানে পিতা/মাতার সংশোধিত নাম দেখা যাবে। আর যদি আপনার জন্ম নিবন্ধন করার সময় আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না দিয়ে থাকেন, তবে আপনার জন্ম নিবন্ধন নম্বরের সাথে পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর ম্যাপ করতে হবে। পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর ম্যাপ করার পর আপনার জন্ম নিবন্ধন সনদ পুনর্মুদ্রণ করলে, সেখানে পিতা/মাতার সংশোধিত নাম দেখা যাবে।
*** যদি আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না থাকে এবং আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর পূর্বে হয়, তবে আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন করার সময় আপনার পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনার পিতা/মাতা মৃত হলেও তাদের মৃত্যুর কোন প্রমাণপত্র দাখিল করতে হবে না।
*** যদি আপনার পিতা/মাতার জন্ম নিবন্ধন নম্বর না থাকে এবং আপনার পিতা/মাতা মৃত হয় এবং আপনার জন্ম তারিখ 01/01/2001 এর পরে হয়, তবে আপনার জন্ম নিবন্ধন তথ্য সংশোধন আবেদন করার সময় আপনার পিতা/মাতার নাম সংশোধন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে আপনার পিতা/মাতার মৃত্যুর প্রমাণপত্র দাখিল করতে হবে।
৩। জন্ম তারিখ সংশোধন। এটা আপলোড হচ্ছে।

আমাদের এটি ব্যবহার করে আপনার জন্ম নিবন্ধন কার্ডে নতুন কপি / ইংরেজী অনলাইন থেকে ডাউনলোড করতে পারবেন।

জন্ম নিবন্ধন অনলাইন কপি/ ইংরেজী ডাউনলোড এটি কারা ব্যবহার করতে পারবে। নিবন্ধন হয়েছে কিন্তু (১) জন্ম নিবন্ধন নষ্ট হয়ে গেছে। (২) ইংরেজী নাই।

যাদের নিবন্ধন নষ্ট হয়ে গেছে কিন্তু সনদ নম্বর আছে তারা এই লিংক থেকে সনদ নম্বর ও জন্ম তারিখ দিয়ে খুব সহজে ডাউনলোড করতে পারবেন। তবে যাদের ইংরেজী ভার্ষণ নেই তারাও একইভাবে ডাউনলোড করতে পারবেন। ধন্যবাদ। ক্লিক করুন

এসব ছাড়াও আমাদের কিছু পার্সোনাল পদ্ধতি রয়েছে যেগুলো অনুশরন করে খুব সহজে নিবন্ধনের সমাধান পেতে পারেন। জানতে কমেন্ট করুন।